অজন্তা মেলা হয় না বলে দিলীপ ঘোষ নিজের জায়গা খুঁজে পেয়েছে,কটাক্ষ বাবুলের

TodayPostNovember , 20211min910
619f26d9a632c_20211125_112742.jpg

[ad_1]

নিজস্ব প্রতিনিধি, পশ্চিম বর্ধমান – দল পরিবর্তন করে তৃণমূলে যোগদানের পর, দলীয় সাংগঠনিক সভা করলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। সভাতে উপস্থিত ছিলেন অভিজিৎ ঘটক, রাম সিং, বিধান উপাধ্যায়, মিনতি হাজরা সহ প্রমূখ তৃণমূল নেতৃ বৃন্দরা। তিন ঘন্টা সফর করে আসানসোল জুবলি মোড়ে, গাড়ি থামিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে পাঁচগাছিয়া দলীয় কার্যালয় পৌছান। সেখানে তিনি শাসক দল ও বিরোধী দল সম্পর্কে নিজের মতামত প্রদান করেন। জনসাধারণের ভালোবাসায় তিনি অনেক আনন্দিত হয়ে ওঠেন।

বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘দিলীপ ঘোষকে নিয়ে আমি কিছু বলতে চাই না। তিনি বাঙালির মনে একটি মনোরঞ্জনের জায়গা। উনি রোজ সকালে শরীর চর্চা, হাস্যকৌতুক বক্তব্য প্রকাশ করছেন। এই নিয়ে উনি ভালো থাকুক। দিলীপ ঘোষ রোজ সকালে নতুন কৌতুক ভরা কোনো বক্তব্য প্রকাশ না করলে, খবরের কাগজের একটি অংশ ফাঁকা রেখে দেওয়া হয়। তবে, অগ্নিমিত্রা আমার বন্ধু হলেও, তার এরূপ টুইট করা উচিত হয়নি। ত্রিপুরায় আমাদের দলীয় কর্মীরা বাধার সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। আমার গাড়ি কার্যত ইট, পাথর ছুড়ে ভেঙে দেওয়া হয়। পুলিশ সায়নীকে বিনা কারণে গ্রেফতার করেছে’।

‘শুভেন্দু অধিকারী নিজেকে অত্যন্ত জ্ঞানী ব্যক্তি মনে করেন। আমাদের একি দিনে জন্ম হয়েছে। তারপরও এতটা বুদ্ধিভ্রষ্ট হয় কি করে। একজন লোকসভার সাংসদ প্রচুর মানুষের সমর্থনে সিট পাওয়ার পর, সেই সিট ছেড়ে দেয়। আবার একই পদে দাঁড়াতে চায়। ওনার সামান্যতম রাজনৈতিক বুদ্ধি নেই। আমাকে নিয়ে যা বলছে বলুক। আমি কোনো প্রশ্নের উত্তর দেবো না। আমি যতটা কাজ করবো ঠিক ততটাই উত্তর দেবো।

বাবুল সুপ্রিয় আরও বলেন, ‘শিল্পীসত্তার জন্যই আমি রাজনীতিতে আসতে পেরেছি। শিল্পীসত্তা থেকেই মানুষের কাছে পৌঁছে ছিলাম। তাতে আমার মনে হয় মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত। রাজনীতিগত লড়াই বাদ দিয়ে, একজন এমপি হিসেবে আমি কাজ করেছি। কাজটাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই, সবার সাহায্য নিয়ে। মিডিয়া আমাকে নিয়ে ব্রেকিং নিউজ বানাক। আগে আমার করা গানটি বিধানদার বিপক্ষে ছিল। বর্তমানে বিধানদার পক্ষে আছে। আমি গান করে মানুষের পাশে থাকতে চাই’।

[ad_2]